চৈত্রের কবিতা

0
367
Print Friendly, PDF & Email

চৈত্রের কবিতা

রাতুল ইসলাম

 

আমি আজ দুপুরের কবিতা লিখব,
কাঠফাটা দুপুরের;
আমি আজ রৌদ্রের কবিতা লিখব,
চৈত্রের রোদের।

যা জোছনার মত ছলনাময়ী নয়,
পথ ভোলায় না,পথ দেখায়;
খুঁতগুলো মেলে ধরে আয়নার মত,
প্রেতকে বানায় না, রম্ভা উর্বশী।

কিন্তু, আমি হতাশ হই, অন্ধক্রোধে গজরাই,
যখন দেখি, একদল উচ্ছিষ্টভোগী জীব,
মানুষের দেহে কদাকার ক্লীব;
যাদের অবৈধ সম্পর্ক ঐ জোছনার সাথে,
তার ধার করা আলোর সাথে।

সত্যকে ওরা ভয় পায়, নির্জলা সত্য,
মিথ্যার মেকাপে সাজে, পটের বিবি;
জোছনার কুৎসিত আলোয় ওরা লীলাখেলা করে,
নোংরা হাতে, সিঁদ কাটে, সত্যের শুভ্র মন্দিরে।

তাই ওরা চৈত্রের রোদে দাড়ায়না,
মেকি গরিমাগুলো, খসে পড়বে বলে;
কুৎসিত কঙ্কাল, বেরিয়ে পড়বে বলে;
পচা মাংসের ঘ্রান ছড়াবে বলে।

তাই আজ আমি চৈত্রের কবিতা লিখব,
ঝাপাঝাপি করে স্নান করব, চৈত্রের রোদে;
বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাব , ঐ জোছনাকে,
বুকে নেব, একমুঠো রোদ।

Comments

comments